শ‌নিবার (৩১ জুলাই) সকা‌ল থেকেই ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু‌ মহাসড়‌কের বি‌ভিন্ন এলাকায় কর্মস্থ‌লে ফেরা মানুষ‌দের উপ‌চে পড়া ভিড় দেখা গে‌ছে। কর্মস্থ‌লে ফেরা এসব শ্রমজীবী মানুষ খোলা ট্রাক, পিকআপ, প্রাইভেটকার, সিএনজি ও মোটরসাইকেলে গাদাগাদি করে গন্তব্যে যাচ্ছে। এতে স্বাভা‌বি‌কের চে‌য়ে কয়েকগুণ বেশি ভাড়া আদায় করা হ‌চ্ছে। কোথাও মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি। এছাড়া বৃ‌ষ্টি‌তে ভি‌জে খোলা ট্রাক ও মোটরসাইকেল চলাচলে চরম ভোগা‌ন্তি‌তে পড়‌তে হ‌চ্ছে এসব কর্মজীবী মানুষের।

মহাসড়কের বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্বপাড়, এলেঙ্গা বাসস্ট‌্যান্ড, টাঙ্গাইল বাইপাস, রাবনা বাইপাস, মির্জাপুর অং‌শে যাত্রীদের প্রচুর পরিমাণে ভিড় রয়েছে। ত‌বে মহাসড়‌কে স্বাস্থ‌্য ঝুঁকি ও নিরাপত্তার ঝুঁকি নি‌য়ে চলাচল করা এসব বিষ‌য়ে পুলিশের তেমন কোনো তৎপরতা দেখা যায়নি।
গার্মেন্টস শ্রমিকরা বলেন, ছু‌টি নি‌য়ে ঈদে বা‌ড়ি‌তে আস‌ছিলাম। প‌রিবহন খু‌লে না দি‌য়ে কীভা‌বে পোশাক কারখানা চালু কর‌ল। এখন শ্রমিকরা কীভা‌বে কর্মস্থ‌লে ফির‌বে। কিছু যানবাহন পাওয়া যায় তা‌তেও তিনগুণ ভাড়া চাওয়া হ‌চ্ছে। সরকার যাই বলুক নির্ধা‌রিত সম‌য়ে কা‌জে যোগদান কর‌তে না পার‌লে চাক‌রি থাক‌বে না। তাই বাধ্য হয়ে কর্মস্থল ঢাকায় ফিরতে হচ্ছে।
আরেক গার্মেন্টস কর্মী ইসরাত জানান, গার্মেন্টস খোলার ঘোষণার পর কোম্পানি‌ থে‌কে নির্ধা‌রিত সম‌য়ে কা‌জে যোগদা‌নের জন‌্য বলা হ‌য়ে‌ছে। তাই তাকে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বাধ‌্য হয়েই চাক‌রি বাঁচা‌তে ঢাকায় ফিরতে হচ্ছে।

গার্মেন্টস খোলা, চাকরি বাঁচাতে ট্রাকে-পিকআপে ঢাকায়

https://www.facebook.com/bm24tvofficialpage